সোমবার, ১৭ জুন ২০২৪ | ৩ আষাঢ় ১৪৩১
ad
বিএনপি নেতা চাঁদের নামে এবার পুলিশের মামলা
অনলাইন ডেস্ক:
  • আপডেট করা হয়েছে : ০৯:৫৬ এএম, ২৩ মে ২০২৩

প্রধানমন্ত্রীকে হত্যার হুমকি দেওয়া রাজশাহী জেলা বিএনপির আহ্বায়ক আবু সাঈদ চাঁদের বিরুদ্ধে এবার মামলা দায়ের করেছে পুলিশ।

সোমবার (২২ মে) রাজশাহী মহানগর পুলিশের কাশিয়াডাঙ্গা থানায় সাব ইন্সপেক্টর আরমান হোসেন বাদী হয়ে এই মামলা দায়ের করেন। 

রাজশাহীর কাশিয়াডাঙ্গা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. মনিরুজ্জামান এ মামলার তথ্য নিশ্চিত করে বলেন, ককটেল বিস্ফোরণ, সন্ত্রাসী কর্মকাণ্ড, নাশকতার পরিকল্পনা ও আগামী নির্বাচন বানচালের অভিযোগে তার থানায় পুলিশ বাদী হয়ে মামলা করেছে। এ মামলায় তাকে গ্রেফতারের জন্য পুলিশ সাঁড়াশি অভিযান চালাচ্ছে।  

এদিকে হুমকির ঘটনায় রবিবার (২১ মে) রাতে স্থানীয় আওয়ামী লীগ নেতা আবুল কালাম আজাদ বাদী হয়ে পুঠিয়া থানায় সন্ত্রাস দমন আইনে একটি মামলা দায়ের করেন। এরপর থেকে তাকে গ্রেফতারের জন্য অভিযান চলছে বলে জানিয়েছেন রাজশাহীর পুলিশ সুপার এবিএম মাসুদ হোসেন।

গত শুক্রবার (১৯ মে) বিকালে রাজশাহীর পুঠিয়া উপজেলার শিবপুর উচ্চবিদ্যালয় মাঠে জেলা ও মহানগর বিএনপি আয়োজিত এক সমাবেশে আবু সাঈদ বলেন, ‘আর ২৭ দফা, ১০ দফার মধ্যে আমরা নাই। এক দফা, শেখ হাসিনাকে কবরস্থানে পাঠাতে হবে। শেখ হাসিনার পদত্যাগের জন্য যা যা করার দরকার, আমরা করবো। 

এর আগেও আবু সাঈদ চাঁদ প্রধানমন্ত্রীকে নিয়ে কটূক্তি করেন। এই অভিযোগে ২০২২ সালের ২৬ জুলাই মানহানির মামলা করা হয়। ওই মামলায় তিনি কিছুদিন আগে জামিন পেয়ে কারাগার থেকে ছাড়া পান।

অন্যদিকে রাজশাহী জেলা বিএনপির আহ্বায়ক ও কেন্দ্রীয় কমিটির নির্বাহী সদস্য আবু সাঈদ ওরফে চাঁদ পুঠিয়ার জনসভায় প্রধানমন্ত্রীকে নিয়ে যে বক্তব্য দিয়েছেন, সে জন্য দুঃখ প্রকাশ করেছেন দলটির চেয়ারপারসনের উপদেষ্টা মিজানুর রহমান ওরফে মিনু।

তিনি জানান, আমরা গণতন্ত্রের জন্য আন্দোলন করি। ওভাবে ব্যক্তিগত আক্রমণটা ঠিক হয়নি। মুরব্বি হিসেবে আমি তার পক্ষে দুঃখ প্রকাশ করছি। মিজানুর রহমান মিনু জানান, বাইরে থাকার কারণে আনুষ্ঠানিকভাবে বিবৃতি দিতে পারছি না। মুঠোফোনে কল করে সবাইকে বলছি। রাজনৈতিক মঞ্চে বক্তব্য দিতে গেলে এ ধরনের ‘স্লিপ অব টাং’ হয়ে যায়। আমাদেরও এ রকম হয়। কিন্তু ভুল করার সঙ্গে সঙ্গে আমরা সংশোধন করে দিই। দরকার হলে সংবাদ সম্মেলন করে ভুল সংশোধন করি, ক্ষমা চাই। চাঁদ এটা ভুল করেছে। তারও সঙ্গে সঙ্গে সংশোধন আনা উচিত ছিল।

এ ধরনের বক্তব্য না দেওয়ার জন্য দলের নির্দেশনা রয়েছে উল্লেখ করে মিজানুর রহমান মিনু জানান, চাঁদের বক্তব্য আমাদের দলের কথা নয়। আমরা তত্ত্বাবধায়ক সরকার চাই, শুধু এই বক্তব্যই দেওয়ার কথা আমাদের। কিন্তু চাঁদ আবেগপ্রবণ ছেলে। সে জন্য হয়তো এ ধরনের কথা বলে ফেলেছে। তার বড় ভাই হিসেবে আমি দুঃখ প্রকাশ করছি। তার হয়ে ক্ষমা চাইছি সবার কাছে।

এদিকে দেশের প্রধানমন্ত্রীকে হত্যার হুমকি দেওয়ার মধ্যে দিয়ে বিএনপির অভ্যন্তরে লালিত সন্ত্রাসী মনোভাবের বহিঃপ্রকাশ ঘটেছে বলে মন্তব্য করেছেন বাংলাদেশের ওয়ার্কার্স পার্টির সাধারণ সম্পাদক ও কেন্দ্রীয় ১৪ দলীয় জোটের অন্যতম নেতা রাজশাহী সদর আসনের সংসদ সদস্য ফজলে হোসেন বাদশা।

১৪ দলীয় জোটনেত্রী ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে হত্যার হুমকির প্রতিবাদে সোমবার (২২ মে) দুপুরে গণমাধ্যমে পাঠানো এক প্রতিবাদলিপিতে বাদশা এ মন্তব্য করেন।

প্রতিবাদলিপিতে ফজলে হোসেন বাদশা বলেন, রাজপথের রাজনীতিতে সুবিধা করতে না পেরে বিএনপি নেতারা এখন এ ধরনের পথ অবলম্বন করেছেন। মূলত এভাবেই তারা ক্ষমতা দখল করতে চায়। তারা যে প্রকৃত অর্থেই সন্ত্রাসবাদের আদর্শকে লালন করে, তা জেলা বিএনপির আহ্বায়ক আবু সাঈদ চাঁদের বক্তব্যের মধ্যে দিয়েই প্রতিফলিত হয়েছে।

বিএনপি নেতা চাঁদের বিরুদ্ধে আইনানুগ ব্যবস্থা নেওয়ার দাবি জানিয়ে প্রতিবাদলিপিতে রাজশাহী-২ আসনের এই সংসদ সদস্য বলেন, চাঁদের এ ধরনের বক্তব্য রাজনৈতিক শিষ্টাচার বহির্ভূত। গণতন্ত্রের ফুলঝুরি ঝরানো বিএনপির কাছে এমন অগণতান্ত্রিক রাজনৈতিক চর্চা কাম্য নয়। প্রধানমন্ত্রীকে হত্যার হুমকি গুরুতর অপরাধের শামিল। সুতরাং, অবিলম্বে চাঁদের বিরুদ্ধে যথাযথ আইনানুগ ব্যবস্থা নেওয়ার দাবি জানাচ্ছি।